Cvoice24.com

চট্টগ্রামের ৯৪ শতাংশ মানুষ করোনার ভ্যাকসিনের বাইরে 

সিভয়েস প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ০৪:১১, ২৯ এপ্রিল ২০২১
চট্টগ্রামের ৯৪ শতাংশ মানুষ করোনার ভ্যাকসিনের বাইরে 

চট্টগ্রামের মোট জনসংখ্যার প্রায় ৯৪ শতাংশ মানুষকে এখনো করোনা ভ্যাকসিনের আওয়াত আনতে পারেনি সরকার। এমনকি এ জেলায় করোনা পরীক্ষার আওতায় এসেছে মাত্র ৫ শতাংশ মানুষ। এরমধ্যে সরকারি সিদ্ধান্তে শেষ হয়েছে প্রথম ডোজের টিকাদান কার্যক্রম। 

জেলা তথ্য বাতায়নের তথ্য মতে, চট্টগ্রামের মোট জনসংখ্যা ৭৯ লাখ ১৩ হাজার। এই মোট জনসংখ্যার মধ্যে যারা করোনায় আক্রান্ত হওয়ার আশংকায় পরীক্ষা করিয়েছেন তাদের সংখ্যা ৪ লাখ ৩২ হাজার ৩৭১ জন। সেখান থেকে করোনায় আক্রন্ত হয়েছেন ৪৯ হাজার ৫৫৪ জন। ৭৯ লাখ ১৩ হাজার বাসিন্দার এ জেলায় করোনার প্রথম ডোজের টিকা নিয়েছেন মাত্র ৪ লাখ ৫৩ হাজার ৭৬০ জন। এরমধ্যে চট্টগ্রাম মহানগরে তুলনায় পিছিয়ে উপজেলাগুলো। যা মোট জনসংখ্যার মাত্র ৬ শতাংশ। যদিও প্রথম দফায় চট্টগ্রামের জন্য ৩৮ কার্টন (৪ লাখ ৫৬ হাজার ডোজ) বরাদ্দ দিয়েছিল মন্ত্রণালয়। পরে আরও ডোজ পাঠানো হয়েছিল। 

২৮ এপ্রিল সিভিল সার্জন কার্যালয় থেকে প্রকাশিত প্রতিবেদনের তথ্যানুযায়ী, প্রথম ডোজের টিকা গ্রহণের শেষ দিন (২৬ এপ্রিল) পর্যন্ত চট্টগ্রামে টিকা গ্রহণকারী ৪ লাখ ৫৩ হাজার ৭৬০ জনের মধ্যে নগরের সংখ্যা ২ লাখ ৫৩ হাজার ২৫৩ আর উপজেলার সংখ্যা ২ লাখ ৫০৭ জন। এরমধ্যে পুরুষ ২ লাখ ৭৫ হাজার ৩৫৭ জন আর ১ লাখ ৭৮ হাজার ৩৬৩ জন নারী। গ্রামে ও নগরে টিকা নেয়ার ক্ষেত্রে পুরুষের সংখ্যা নগরে ১ লাখ ৫৪ হাজার ৬২০ আর উপজেলায় ১ লাখ ২ হাজার ৭৭৭ জন। নারীর সংখ্যা নগরে ৮৮ হাজার ৬৩৩ জন এবং উপজেলায় ৭৯ হাজার ৭৩০ জন। 

চট্টগ্রামে করোনা সংক্রমণের পর থেকে এখন পর্যন্ত নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ৪ লাখ ৩২ হাজার ৩৭১টি। যা চট্টগ্রামের মোট জনসংখ্যার প্রায় ৫ শতাংশ এবং টিকা নিয়েছেন মোট জনসংখ্যার প্রায় ৬ শতাংশ। তবে করোনার টিকা পাওয়া সহজলভ্য না হওয়ায় নগরের প্রায় ৯৪ শতাংশ মানুষ এখনও টিকার আওতায় আসতে পারেনি। 

সিভিল সার্জন কার্যালয়ের প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, গত একবছরে হাসপাতালে ভর্তি হয়ে করোনার চিকিৎসা নিয়েছেন ৭ হাজার ২৫৩ জন, এরমধ্যে গত মার্চ মাসে চিকিৎসা নিয়েছেন মাত্র ৫২৭ জন। এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ৩৬ হাজার ১৮৬ জন। এরমধ্যে ৩১ হাজার ১৫০ জনই হোম আইসোলেশনে থেকে এবং বাকি ৫ হাজার ৩৬ জন হাসপাতালে ভর্তি হয়ে চিকিৎসা সেবা গ্রহণ করেন। এছাড়া চট্টগ্রামে ১ হাজার ৬০০ শয্যার বিপরীতে রোগী ভর্তি রয়েছে ৬৯৬টি শয্যায়। আর বাকি ৯০৪ শয্যা এখনও খালি রয়েছে।

Nagad

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়