Cvoice24.com

সামাজিক দূরত্ব না মেনেই চসিকের আইসোলেশন সেন্টার উদ্বোধন

সিভয়েস প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ১৯:১৪, ৬ এপ্রিল ২০২১
সামাজিক দূরত্ব না মেনেই চসিকের আইসোলেশন সেন্টার উদ্বোধন

সামাজিক দূরত্ব না মেনেই চসিকের আইসোলেশন সেন্টার উদ্ধোধন।

বাড়ছে করোনার সংক্রমণ। সংক্রমণ ঠেকাতে টানা ৭ দিনের লকডাউন ঘোষণা করেছে সরকার। এমন অবস্থায় সরকারের পক্ষ থেকে জোর দেওয়া হচ্ছে স্বাস্থ্যবিধি মানার ব্যাপারে। এমনকি মসজিদে নামাজের কাতারে দাঁড়াতে সামাজিক দুরুত্ব মানার ব্যাপারে সুস্পষ্ট নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। কিন্তু এ অবস্থায় কোন রকম স্বাস্থ্যবিধি না মেনে উদ্ধোধন করা হয়েছে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের (চসিক) ৫০ শয্যার আইসোলেশন সেন্টার। এসময় পাশাপাশি চেয়ারে বসতে গেছে খোদ চসিকের মেয়র—কর্মকর্তাদের। উপস্থিত ছিলেন কয়েকজন ওয়ার্ড কাউন্সিলরও।

মঙ্গলবার (৬ এপ্রিল) দুপুরে চসিকের লালদিঘীর লাইব্রেরি ভবনের দুইটি ফ্লোর নিয়ে গড়ে তোলা ৫০ শয্যার সেন্টারটির উদ্বোধন করেন মেয়র মো. রেজাউল করিম চৌধুরী। সেখানে সামাজিক দূরুত্ববিধি না মানলেও মেয়র রেজাউল করিম চৌধুরী বলেছেন করোনা সংক্রমণ এড়াতে সিটি কর্পোরেশন সচেতনতা সৃষ্টির কাজ চালিয়ে কাজ চালিয়ে যাচ্ছে। এসময় তিনি বলেন-  ‘করোনায় আমরা অনেক কেউকে হারিয়েছি। এ যুদ্ধ আমরা মোকাবেলা করছি। যখন থেকে সংক্রমণ শুরু হয়েছে তখন থেকে আমাদের স্বাস্থ্যবিভাগ সহ সবাই সতর্কতার সাথে পরিস্তিতি মোকাবেলা করছে।’

এদিকে সিটি কর্পোরেশনের আইসোলেশন উদ্ধোধনীতে সামাজিক দুরুত্ব বিধি না মানার ব্যাপারে যারা উপস্থিত ছিলেন তাদের কোন নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে কি’না জানতে চেয়ে যোগাযোগ করা হলে ফোন রিসিভ করেন নি চসিকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা কাজী মোহাম্মদ মোজ্জাম্মেক হক। কিন্তু চসিকের কয়েকজন কর্মকর্তার সাথে যোগাযোগ করে জানা গেছে,  সেখানে উপস্থিত ছিলেন সিটি কর্পোরেশনের বিভিন্ন বিভাগের প্রধানরা। তবে উদ্ধোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত হওয়ার জন্য কোন রকম চিঠি বা অনুষ্ঠানে স্বাস্থ্যবিধি মানতে কোন রকম নির্দেশনা দেওয়া হয়নি কর্মকর্তাদের। 

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক চসিক কর্মকর্তা সিভয়েসকে বলেন, ‘করোনায় স্বাস্থ্যবিধি মানতে হবে এটা তো কমনসেন্সের ব্যাপার। এটা আবার চিঠি বা নির্দেশনা দিয়ে জানাতে হবে কেন? কিন্তু অনুষ্ঠানের রুমটা ছোট ছিল। আর মেয়র  মহোদয় ফিতা কাটার সাথে সাথে সবাই হুরহুর করে ঢুকে গেছে। আর উপস্থিতিও বেশি ছিল। সবমিলিয়ে সামাজিক দূরুত্ববিধি মানা সম্ভব হয়নি।’

ফেসবুক ভাইরাল হওয়া একটি ভিডিওতে দেখা যায়, মেয়র রেজাউল করিম চৌধুরী বক্তব্য দেওয়ার সময় পেছনে ভিড় করে দাঁড়িয়ে ছিলেন চসিকের কর্মকর্তারা। এসময় মেয়রের ডান পাশে সামাজিক দূরুত্ব রক্ষা না করেই বসে থাকতে দেখা যায়-  চসিক সংরক্ষিত (নারী) কাউন্সিলর রুমকি সেন গুপ্ত ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা কাজী মোজাম্মেল হককে। মেয়রের বাম পাশে বসে ছিলেন চসিকের প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. সেলিম আকতার চৌধুরী, চসিকের প্যানেল মেয়র মো. গিয়াস উদ্দিন, চসিকের সাধারণ ওয়ার্ড কাউন্সিলর আবুল হাসনাত বেলাল। সেখানে উপস্থিত সবার মুখে মাস্ক থাকলেও সামাজিক দূরুত্ববিধি মানার ব্যাপারে উদাসীন ছিলেন তারা।

কাউন্সিলর রুমকি সেন গুপ্ত সিভয়েসকে বলেন, ‘মেয়র মহোদয় একজন নগরপিতা। সেই হিসেবে মিডিয়ার সবাই এসেছে। তখন একটু ভিড় হয়েছে। এর পর আমরা আমাদের মতো করে চলে এসেছি।’  

তবে আইসোলেশন সেন্টার উদ্ধোধনের খবরে ব্যাপক সাড়া পাওয়া যাচ্ছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘আমরা ব্যাপক সাড়া পাচ্ছি। অনেকেই ফোনে যোগাযোগ করছে। সেখানে কোন সিরিয়াস রোগী এলে জেনারেল হাসপাতালে হস্তান্তর করা হবে। এর বাইরে করোনারোগীদের চিকিৎসায় অগ্রণী ভূমিকা রাখবে আইসোলেশনটি  এ প্রত্যাশা করি।’

-সিভয়েস/এপি

Add

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়